মঙ্গলবার, ২৯ নভেম্বর ২০২২, ১১:০৩ অপরাহ্ন

নাগেশ্বরীতে কীটনাশক ব্যবসায়ীর ভূল ঔষধে কৃষকের সর্বনাশ

রিপোর্টারের নাম / ১৭৯ বার
আপডেট সময় মঙ্গলবার, ৪ মে, ২০২১

 মোঃ মসলেম উদ্দিন,নাগেশ্বরী (কুড়িগ্রাম) প্রতিনিধিঃ কুড়িগ্রামের নাগেশ্বরী উপজেলার হাসনাবাদ ইউনিয়নের ন্যাডারপাড় গ্রামের মৃত অাব্দুস ছাত্তারের পুত্র অাবুল কালামের ৫০শতক জমির ধান পুড়ে গেছে ভূল ঔষধে। ঘটনাটি প্রায় দুই সাপ্তাহ পূর্বে ঘেটেছে বলে কৃষক অাবুল কালাম জানায় ঘটনাস্থল পরিদর্শনে জানা যায় অাবুল কালাম একজন দিন মজুর। সে বিভিন্ন সময়ে ক্ষেতে খামারে কাজ করে সংসার চালায় এবং অন্য মানুষের জমি বর্গা চাষ করে। সে এ মৌসুমে ৫০ শতক জমিতে বর্গাচাষী হিসাবে তেজ গোল্ড ও ২৮জাতের ধান চাষ করেছে। ধানের ফলন ভাল হলেও জমিতে ছত্রাক জনিত রোগ দেখা দেয়। ধান চাষী মুনিয়াহাট বাজারে কীটনাশক ঔষধের দোকানদার অাব্দুস ছামাদের নিকট পরামর্শ নিতে গেলে অাব্দুস ছামাদ তাকে প্যারাটক্স ও ফলিকুর নামক দুই ফাইল ঔষধ দেয়। পরের দিন কৃষক ওই জমিতে ঔষধের ফাইল দুটি স্প্রে করে দেয়। অাবুল কালাম সকালে ধান ক্ষেত দেখতে গিয়ে দেখতে পায় তার সমস্ত ধান পুড়ে শেষ হয়ে যায়। কৃষক হতাশ হয়ে দোকানী অাব্দুস ছামাদের সাথে সাক্ষাত করলে সে ঔষধ বিক্রির কথা অস্বীকার করে। এ ব্যাপারে ন্যাডার পারের জসিজুল মন্ডল বলেন – জমিতে ছত্রাক ধরেছে, দোকানদার ভূল করে ঘাস মারা ঔষধ দিয়ে সমস্ত ধান পুড়ে দিয়েছে,এতে করে কৃষকের প্রায় ৫০ হাজার টাকার ক্ষতি হয়েছে। একই গ্রামের কৃষক গোলাম মওলা জানান এই সব দোলা জমিতে বিঘায় ২৫থেকে৩০মন ধান হয় অামরা কৃষক ও মূর্খ মানুষ অামাদের এভাবে ভূল ঔষধ দিয়ে জমির ধান নষ্ট করা মানে অামাদের বিরাট ক্ষতি এর বিচার চাই। কৃষক অাবুল কালাম বলেন-অামার নিজের কোন জমি নাই অন্যের জমি বর্গা চাষ করে খাই, ভূল ঔষধের কারনে অামার সমস্ত ধান নষ্ট হয়ে গেছে, এখন অামি পরিবার নিয়ে খাব কি, অার জমির মালিক কে দিব কি? অামি এ সুষ্ঠু বিচার চাই।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

বিস্তারিত
Theme Created By ThemesDealer.Com
DMCA.com Protection Status