সোমবার, ২৮ নভেম্বর ২০২২, ০৬:৫৮ অপরাহ্ন

আক্কেলপুরে পাকচং জাতের ঘাস চাষে ব্যস্ত কৃষকরা।

রিপোর্টারের নাম / ৩৩৩ বার
আপডেট সময় বৃহস্পতিবার, ১১ জুন, ২০২০

নিরেন দাস,জয়পুরহাট প্রতিনিধিঃ-

জয়পুরহাটের আক্কেলপুরে কৃষকরা এখন পাকচং জাতের ঘাস চাষে ব্যস্ত সময় পার করছে।

আক্কেলপুর উপজেলার বিভিন্ন গ্রামে কৃষকরা দেশের অর্থকরী ফসল পাট ,গম, ধান সবজি চাষের পাশাপাশি গোঁ খাদ্য হিসেবে পরিচিত পাকচং ঘাষে অধিক আগ্রহী হয়েছে।

পাট ,ধান ও সবজি চাষে সার কীটনাশক প্রয়োগে যত খরচ হয় তাতে ঘাস চাষে খরচ কম এবং অধিক লাভজনক মনে করেন কৃষকরা।

এখন সবুজ ঘাসে ভরে গেছে মাঠ
উপজেলার পৌর ৭ নং ওয়ার্ডে সুভাষচন্দ্র বলেন।আগে আমি জমিতে অন্য ফসল চাষ করে তেমন লাভ হতো না।

গত এক বছর থেকে দুই বিঘা জমিতে ঘাস চাষ করে আসছি
সার, বীজ শ্রমিক খরচ সহ বিঘা প্রতি ২০ হাজার টাকা খরচ হয়।

ঘাস বাজারে বিক্রি করে প্রায় ৫০ থেকে ৬০ হাজার টাকা পাই, শ্রীকৃষ্টপুর গ্রামের আব্দুস সামাদ বলেন, উপজেলার প্রায় সব মাঠে এই ঘাষের চাষ হয় ।এবং আক্কেলপুর কলেজ হাটে আটি বাঁধা ঘাষ বিক্রি করতে দেখে এক বছর থেকে আমিও নিয়মিত ভাবে থাইল্যান্ডের পাকচং জাতের ঘাষ চাষ করে আসছি।

আব্দুস ছামাদ আরো বলেন দুগ্ধ গাভী ও গরু খামার মালিকদের কাছে এই ঘাষের আধিক চাহিদা রয়েছে ।

উপজেলা প্রাণী সম্পদ কর্মকর্তা বলেন,এবার উপজেলায় প্রায় ৩শ হেক্টর জমিতে পাকচং জাতের ঘাষের চাষ হয়েছে ।

অন্য ঘাষের তুলনায় এতে প্রোটিন দ্বিগুণ পাকচং ঘাষ একবার চাষ করলেই দুই বছর পর্যন্ত চাষ করা সম্ভব ।এটি প্রতি মাসে কাটা যায় ।

পাকচং কাটার পর অল্প পরিমান সার ও গ্রীষ্ম কালীণ মৌসুমে সেচ দিলে ২৫ থেকে ʼ৩০ দিনে ৫থেকে ৭ফুট লম্বা হয় ।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

বিস্তারিত
Theme Created By ThemesDealer.Com
DMCA.com Protection Status